1. admin@swadhenata.com : admin :
  2. editor@gmail.com : editor :
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ১২:৩৮ অপরাহ্ন

নেত্রকোণায় ডাক্তার ভুলে প্রসবের থলি কেটে ফেলায় প্রসূতি মায়ের মৃত্যু

  • আপডেট : মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০
  • ৬৬ বার পড়া হয়েছে

 

আল-আমিন স্টাফ রিপোর্টার :
নেত্রকোণা পৌর শহরের সুনেত্র হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সিজারের সময় ভুলে প্রসবের থলি ও জরায়ু কেটে ফেলার কারণে প্রসূতি আইরিন পারভীন ঝর্ণার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

স্বজনদের মতে সোমবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে হাসপাতালটিতে ডাঃ জীবন কৃষ্ণ রায় ঝর্ণার সিজার করেন।

তিন সন্তানের জননী ঝর্ণা সদর উপজেলার লহ্মীগঞ্জ ইউনিয়নের আতকা পাড়া গ্রামের নূরে আলম খোকনের স্ত্রী।

ঝর্ণার দেবর মো. আল মাসুদ ও ভগ্নিপতি আব্দুল মান্নান স্বাধীনতা ডট কম এর প্রতিনিধিকে  জানান, ডাঃ জীবন কৃষ্ণ রায় সিজারের সময় ভুলবশত প্রসবের থলি কেটে ফেলেন৷ পরে তার রক্তক্ষরণ শুরু হলে আর বন্ধ হচ্ছিলো না।

পরিস্থিতি বেগতিক দেখে একবারের পরিবর্তে তিনবার অপারেশন থিয়েটার (ওটি) নেন এমনকি কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে কেটে ফেলেন জরায়ু। জটিলতা বাড়তেই থাকে এবং অবিরত- মাত্রাতিরিক্ত রক্তক্ষরণ চলে। এতে শারীরিক অবস্থার চরম অবনতি ঘটে প্রসূতির।

অবস্থা বেগতিক বুঝে একপর্যায়ে দিনগত রাতে ঝর্ণাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) নিয়ে যাবার পরামর্শ দেন ডাঃ জীবন কৃষ্ণ রায়। এবং তার পরামর্শ অনুযায়ী মমেকে নিয়ে যাওয়া হয়। নেত্রকোণা থেকে ময়মনসিংহে ঝর্ণার প্রয়োজন হয় ১০ ব্যাগ রক্ত।

অন্যদিকে সুনেত্র হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পাঠানো লোক রোগীর সাথে থাকা চিকিৎসার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে সটকে পড়েন। এতে মমেক থেকে চিকিৎসা নিতে যথেষ্ট ভোগান্তি ও বেগ পেতে হয়।

সুনেত্র হাসপাতালের পরিচালক আব্দুল কাইয়ুম খান জানান, চিকিৎসাজনিত কাগজপত্র গুলো হাসপাতালে রাখতে হয় সেজন্য নিয়ে আসা হয়েছে!

এব্যাপারে অভিযুক্ত ‘ডাঃ জীবন কৃষ্ণ রায়’এর সাথে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

সুনেত্র থেকে ঝর্ণাকে রাতে মমেকে পাঠিয়ে দ্রুত অপর একটি হাসপাতালে চলে যান। এসময় ওই হাসপাতালে গিয়েও তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

পরে রাত পেরিয়ে মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সকালে মমেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ঝর্ণা। কিন্তু এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত চিকিৎসক জীবন কৃষ্ণের সাথে কথা বলা বা সাক্ষাৎ সম্ভব হয়নি।

শহরে আলোচিত এসব ঘটনায় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ নানা মাধ্যমে তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদের পাশাপাশি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি তুলেছেন।

উল্লেখ্য, ডাঃ জীবন কৃষ্ণের হাতে এর আগেও একাধিক প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ রয়েছে। আছে থানায় অভিযোগ। এরপরও তিনি নিজের ক্ষমতা বলে একের পর এক সিজার করেই চলছেন। মাঝেমধ্যেই ঘটছে প্রসূতি মায়েদের প্রাণহানী।

শেয়ার করুন-

এ জাতীয় আরও সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর

নামাজের সময় সূচি

সেহরির শেষ সময় - ভোর ৩:৪০ পূর্বাহ্ণ
ইফতার শুরু - সন্ধ্যা ৬:৫১ অপরাহ্ণ
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৫ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০২ অপরাহ্ণ
  • ৪:৩৯ অপরাহ্ণ
  • ৬:৫১ অপরাহ্ণ
  • ৮:১৭ অপরাহ্ণ
  • ৫:১০ পূর্বাহ্ণ